Wednesday, July 24, 2024

ব্রিকসের সদস্য হওয়ার ক্ষেত্রে ভূ-রাজনৈতিক ইস্যু থাকতে পারে

কূটনৈতিক প্রতিবেদক,অর্থভুবন
ব্রিকস জোটে নতুন সদস্য যোগ করার ক্ষেত্রে রাজনৈতিক ও আঞ্চলিক এবং ভারসাম্য ইস্যু থাকতে পারে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন। দক্ষিণ আফ্রিকায় ব্রিকস সম্মেলন শেষে দেশে ফিরে  রবিবার তিনি ঢাকায় সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

এবারের ব্রিকস সম্মেলনে আর্জেন্টিনা, মিসর, ইথিওপিয়া, ইরান, সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতকে পূর্ণ সদস্য হওয়ার আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। আগামী বছর থেকে এটি কার্যকর হবে।

 

পররাষ্ট্রসচিব বলেন, এবার সদস্য পদ না পাওয়ায় হতাশার কিছু নেই। আগামী দিনে বাংলাদেশ ব্রিকসে যুক্ত হতে পারবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

ইথিওপিয়ার মতো দেশের ব্রিকসের সদস্য হতে আমন্ত্রণ পাওয়া এবং বাংলাদেশের না পাওয়ার মূল্যায়ন জানতে চাইলে পররাষ্ট্রসচিব বলেন, এখানে রাজনৈতিক ও আঞ্চলিক অনেক ইস্যু আছে। এখানে ভারসাম্য করার একটা ব্যাপার আছে।

নতুন সদস্যদের মধ্যে লাতিন আমেরিকা থেকে একটি, উত্তর আফ্রিকা থেকে একটি, আবার মধ্যপ্রাচ্য থেকে একটি নিয়েছে। সুতরাং তারা ভৌগোলিক ভারসাম্য রক্ষা করার চেষ্টা করেছে।

 

পররাষ্ট্রসচিব বলেন, ‘আমাদের পাশে আরো দেশ ছিল। যারা আগ্রহী ছিল।

তারাও পায়নি। এটি একটা চলমান প্রক্রিয়া। রাজনৈতিক পর্যায়ে বলতে পারেন, আমরা ছয়জনের (ছয় দেশের) মধ্যে এবার ছিলাম না। কিন্তু ব্রিকসের সত্যিকারের যে আউটরিচটা (নিউ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক-এনডিবি) আছে, তার মাধ্যমে আমাদের লাভবান হওয়ার সুযোগ আছে। সেটাতে আমরা আছি।

 

মাসুদ বিন মোমেন বলেন, এবার ব্রিকস সম্মেলনে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট তাঁর বক্তব্যে বলেছেন, ‘এটা প্রথম ধাপ। পরবর্তী সময়ে আরো ধাপ আসবে। আমরা আশা করছি যে পরবর্তী ধাপে আমরা সুযোগ পাব। এর মধ্যে আমরা একটু সময় পেলাম।’

পররাষ্ট্রসচিব বলেন, ‘সবাই যেভাবে বলছিল, ব্রিকস জি-৭ বা পশ্চিমা অর্থনীতির বিকল্প প্ল্যাটফরম হবে। ব্যাপারটি কিন্তু এতটা সহজ না। এবার কিন্তু আমরা সে ধরনের কিছু দেখিনি। ব্রিকসের ১৫ বছরে নিউ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক ছাড়া তেমন একটা চোখে পড়েনি।’

ব্রিকসে বাংলাদেশের আবেদনের প্রেক্ষাপট তুলে ধরে পররাষ্ট্রসচিব বলেন, ‘জেনেভায় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্টের যখন দেখা হয়েছিল, তখন তিনি বলেছিলেন, আমাদের ব্রিকস সম্মেলনে দাওয়াত দেবেন ব্রিকস প্লাসে যোগদানের জন্য। পরে আমরা সেই দাওয়াতও পেয়েছি। প্রধানমন্ত্রী উত্তরে বলেছেন, আমরা যাব সেখানে। আমরা ব্রিকসের ফরম্যাটে যাব।’

এদিকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের পাইলট প্রকল্প প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রসচিব বলেন, রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার তারিখ এখনো নির্ধারিত হয়নি। মহাপরিচালক পর্যায়ের বৈঠক হবে মিয়ানমারে, রাখাইনে দেখাবে। সেপ্টেম্বরে কাজ শুরু করব। কিছু কিছু দেশ ও সংস্থার আপত্তি আছে। ডিসেম্বরের আগে শুরু হবে। সচিব বলেন, মিয়ানমারের আরেকটি দল আসবে। তারা সরাসরি রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলবে। তিন হাজার রোহিঙ্গার তালিকা দিয়েছি। তবে তারা হাজারখানেক রোহিঙ্গা ফিরিয়ে নিতে পারে।

পররাষ্ট্রসচিব জানান, রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সার্গেই লাভরভ আগামী মাসে বাংলাদেশ সফরে আসতে পারেন।

 
spot_imgspot_img

ইস্ট আম্বার চাল সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক

বর্ষার সময় বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ বেশি থাকে। ফলে আদি চালের বাইরে সাদা সাদা ইস্ট জমে। এটা মূলত প্রাকৃতিক ইস্ট। যা পাউরুটিকে নরম তুলতুলে...

দক্ষ জনশক্তি গড়তে ১১৭ কোটি টাকা দিল কোইকা

নিজস্ব প্রতিবেদক,অর্থভুবন দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে বাংলাদেশকে ১১৭ কোটি টাকার আর্থিক সহায়তা দিয়েছে কোরিয়া ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (কোইকা)। গতকাল বুধবার প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান...

বাকিংহাম প্যালেস : এবার ব্যালকনির পেছনের ঘরটি দেখার সুযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক,অর্থভুবন বিশেষ বিশেষ দিনে বা ঘটনার ক্ষেত্রে বাকিংহাম প্যালেসের ব্যালকনি থেকে দেশবাসীর সামনে দেখা দিয়ে থাকেন রাজা বা রানিসহ ব্রিটিশ রাজপরিবারের সদস্যরা। সে কারণে...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here