Saturday, June 22, 2024

নীরব সাধনায় বাংলাদেশ

অর্থভুবন প্রতিবেদক

নানাভাবে চেষ্টা করেও যখন কিছুতেই সাফল্য আসে না, বিচিত্র মানুষের মন তখন ভিন্ন পথ খোঁজে। খুঁজতে খুঁজতে তাবিজ-কবচ, জাদুটোনা এবং তন্ত্রমন্ত্রে নির্ভরশীল হয়ে পড়া মানুষেরও অভাব নেই পৃথিবীতে। গুগল ম্যাপ জানাচ্ছে, এভাবে সাফল্যপ্রত্যাশী মানুষের কাছে তীর্থ হয়ে ওঠা একটি জায়গা থেকে এবারের বিশ্বকাপ খেলতে আসা বাংলাদেশ দলও খুব দূরে ছিল না।

দুটি ওয়ার্ম আপ ম্যাচ খেলতে আসামের গুয়াহাটিতে যাওয়া দলের আবাস ভিভান্থা হোটেল থেকে যেমন মাত্র ঘণ্টাখানেকের দূরত্বেই ছিল কামাখ্যা মন্দির।

 
কত সহস্র মানুষের কাছে যেটি আকাঙ্ক্ষা পূরণের ঠিকানাও। বিশেষ করে তান্ত্রিক সাধকদের আখড়ায় তন্ত্রমন্ত্রে ভাগ্যের জট খোলার আশায় ভিড় লেগেই থাকে। সেই ভিড়ে অবশ্য বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের কাউকে দেখার কোনো খবর এখন পর্যন্ত নেই। তাই বলে এমন নয় যে তাঁদের কেউ কেউ অন্যভাবে ভাগ্য বদলানোর চেষ্টা করে দেখেন না।
 
দলের সবচেয়ে ধর্মপ্রাণ ক্রিকেটারদের কারো কারো মধ্যেও কাজ করে নানা রকম সংস্কার। এমনকি তাবিজ-কবচের মতো তুকতাকে কেউ কেউ ভীষণ আস্থাশীল বলেও খবর বেরিয়ে আসে মাঝেমধ্যেই।

 

নিজের জন্য কেউ সত্যিই তেমন কিছু করে থাকলে এবার দলের ক্ষেত্রেও একই পথ ধরার দাবি উঠে গিয়ে থাকতে পারে। কারণ পুরো বাংলাদেশ শিবিরই ভীষণ মরিয়া হয়ে আছে যেন এবারের বিশ্বকাপটি আগের যেকোনোটির চেয়ে ভালো যায়।

 
এর একটিতে ২০১৫ সালে তারা নিজেদের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছে বটে, কিন্তু শেষ বিচারে গেলে দেখা যায় সেই আসরেও তিনের গেরো ছোটাতে পারেনি বাংলাদেশ। জেতা ম্যাচের সংখ্যা সেই তিনটিই। আগের দুই আসরেও যে সংখ্যা একই ছিল, পরের একটিতেও।

 

উপসংহার টানতে গিয়ে কলম্বোতে এশিয়া কাপের সময় তাই অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে বলতে হয়েছিল, ‘(আগের চার আসরে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স) আহামরি কিছু নয়।’ গতকাল আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে আইসিসির আয়োজনে ১০ দলের অধিনায়কদের নিয়ে যে ‘ক্যাপ্টেন্স ডে’ হয়ে গেল, সেখানেও তাঁর কণ্ঠে অনুচ্চারে বাজল আগের চার আসরকে ছাড়িয়ে যাওয়ার আকুতি।

 
যেটি উপস্থাপিত হলো দেশের মানুষের প্রত্যাশার মোড়কেই, ‘আমরা আগে যা করেছি, দেশের মানুষ এখন তার চেয়ে বেশি কিছু প্রত্যাশা করছে।’

 

একই প্রত্যাশা আগের আসরগুলোতেও ছিল। কিন্তু ২০১৯ বিশ্বকাপে সাকিবের অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্সের পরও তিনে আটকে থাকার ভাগ্য বদলায়নি। এবার সেটি বদলাতে মরিয়া সাকিব যখন আহমেদাবাদে অন্য অধিনায়কদের সঙ্গে ব্যস্ত সময় পার করছেন, ততক্ষণে তন্ত্রমন্ত্রের শহর ছেড়ে আসা বাংলাদেশ দল আরেক শহর ধর্মশালায় এক রাত্রি পার করে দিয়েছে। ‘ধরম’ আর ‘শালা’ শব্দ দুটির আলাদা অর্থ একসঙ্গে করে জানালে এই শহরের বিশেষ বৈশিষ্ট্য আরো ভালো বুঝতে পারবেন, ‘আধ্যাত্মিক বাসস্থান বা আশ্রয়স্থল’। আধ্যাত্মিক নেতা চতুর্দশ দালাই লামাও এই শহরে আছেন সেই ১৯৫৯ সাল থেকে। চীনের অধিগ্রহণ করা তিব্বত থেকে পালিয়ে আসা এই ধর্মগুরু ও তাঁর শিষ্যদের ধর্মশালায় থাকার ব্যবস্থা করে দেন তখনকার ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী জওয়াহেরলাল নেহরু। তখন থেকে দালাই লামার উদ্যোগে এই শহরেই গড়ে উঠেছে তিব্বতি শরণার্থীদের উপনিবেশ। নিজের জন্মভূমি তিব্বতের দরজা দালাই লামার জন্য চিরদিনের মতো বন্ধ হয়ে গেছে ঠিক, তবে কখনো চীনা সরকারকে নিয়ে একবারও অশালীন কিছু বলতে শোনা যায়নি তাঁকে। বরং আধ্যাত্মিকতার নীরব সাধনায় ধর্মশালায়ই পার করে দিচ্ছেন সংঘাতহীন শান্তিপূর্ণ এক জীবন।

আধ্যাত্মিকতার এই শহরে অশান্তির হাওয়ায় ভারী হতে থাকা বাংলাদেশ শিবিরও খুঁজছে শান্তির পথ। অধিনায়কদের কালকের আয়োজনে সাকিব যদিও আইসিসি ওয়ানডে সুপার লিগ তিন নম্বরে থেকে শেষ করার কথা গর্ব করেই বলেছেন। এর ভিত্তিতে এবারের বিশ্বকাপে আগের যেকোনোবারের চেয়ে ভালো কিছু না করার কারণও খুঁজে পাননি তিনি। কিন্তু এটিও তো ঠিক যে নানা বিতর্ক এবং পারফরম্যান্সের পড়তি গ্রাফ মিলিয়ে দলটি বিশ্বকাপের আগে পথ হারিয়েছে। বিশেষ করে তামিম ইকবালের হুট করে অবসর নেওয়া, সেটি ভেঙে ফিরে আসা, নেতৃত্ব ছাড়া এবং শেষমেশ ‘নোংরামি’র জন্য নিজেই বিশ্বকাপ দলে থাকতে না চাওয়ার ব্যাপারটি যোগ হয়ে বিতর্কের যে স্ফুলিঙ্গ ছড়ায়, তা দলের মনোযোগেও ব্যাঘাত ঘটায় নিশ্চিতভাবেই।

৭ অক্টোবর ধর্মশালাতেই আফগানিস্তান ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরুর আগে মনোযোগ ফেরাতে এবং ছন্দে ফিরতে তাই সাকিবের দলের চেষ্টাও দৃশ্যমান অনেকটা। যথাসম্ভব সংবাদমাধ্যম এড়িয়ে চলা দল তন্ত্রমন্ত্র নয়, আধ্যাত্মিকতার শহরে এর নীরব সাধনাকেই যেন করেছে ধ্যান-জ্ঞান!

spot_imgspot_img

ইতালিপ্রবাসীদের জন্য সুখবর দিল ভিএফএস

ভিএফএস গ্লোবালের অনিয়ম-দুর্নীতি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশের পর নড়েচড়ে বসেছে ভিএফএস গ্লোবাল। এবার তারা ইতালিপ্রবাসীদের জন্য সুখবর নিয়ে এসেছে। ভিএফএস তাদের নিজস্ব ফেসবুক পেজের মাধ্যমে...

জেলখানার চিঠি বিকাশ চন্দ্র বিশ্বাস  কয়েদি নং: ৯৬৮ /এ  খুলনা জেলা কারাগার  ডেথ রেফারেন্স নং: ১০০/২১ একজন ব্যক্তি যখন অথই সাগরে পড়ে যায়, কোনো কূলকিনারা পায় না, তখন যদি...

কর্মসৃজনের ৫১টি প্রকল্পে নয়ছয় মাগুরায়

মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলায় ২০২৩-২৪ অর্থবছরে অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচির (ইজিপিপি) আওতায় দ্বিতীয় পর্যায়ের ৫১টি প্রকল্পের কাজে নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। প্রকল্পে হাজিরা খাতা না...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here