Friday, June 21, 2024

তিতাসকন্যা আলো তুখোড় দাবাড়ু

বারবার দাবা খেলায় চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ হয়ে একের পর এক পদক অর্জন করছেন বাংলাদেশ পুলিশের বেতনভুক্ত দাবা খেলোয়াড়, ওমেন ক্যান্ডিডেট মাস্টার খেতাবপ্রাপ্ত কুমিল্লার তিতাস উপজেলার নারান্দিয়া কলিমিয়া উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নুসরাত জাহান আলো। এ নিয়ে ১৩-১৪ বার দাবায় চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ পদক পেয়েছেন তিনি।

আলো তিতাস উপজেলা নারান্দিয়া ইউনিয়নের তুলাকান্দি গ্রামের রাকিবুল আলমের মেয়ে। পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, দ্বিতীয় বাংলাদেশ যুব গেমসে স্বর্ণ, রৌপ্য ও ব্রোঞ্জ পদক পেয়েছেন আলো। ৩৬তম জাতীয় ইউথ চ্যাম্পিয়নশিপ ২০২৩-এ (অনূর্ধ্ব-১৮) চ্যাম্পিয়ন এবং ইতালিতে ওয়ার্ল্ড ইউথ খেলার সুযোগ পান তিনি। এছাড়া পান জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা ২০২৩ স্বর্ণ পদক (রাষ্ট্রপতি পদক) ও শেখ রাসেল জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা ২০২৩ (প্রধানমন্ত্রী পদক)। এশিয়ান জোনাল ৩.২ চেস চ্যাম্পিয়নশিপ (ওয়ার্ল্ড কাপ বাছাই) ওমেন ক্যান্ডিডেট মাস্টার খেতাবপ্রাপ্ত নুসরাত জাহান আলো। এ ছাড়া ১২ সেপ্টেম্বর ৪৯তম গ্রীষ্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা (২০২২) কুমিল্লা জেলা পর্যায়ে দাবা খেলায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন তিনি। ২০১৬ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে শেখ রাসেল চেস টুর্নামেন্ট পুরস্কার গ্রহণ করেন। এর আগে ২০১৬ সালে (আন্ডার টেন) ন্যাশনাল জুনিয়র চেস চ্যাম্পিয়ন পদক, ২০১৭ সালে রাষ্ট্রপতির কাছ থেকে জাতীয় শিশু পুরস্কার (রৌপ্য পদক), ২০১৮ সালে রাষ্ট্রপতির কাছ থেকে জাতীয় শিশু পুরস্কার (স্বর্ণ পদক), ২০১৯ সালে প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে জাতীয় শিশু পুরস্কার ও ২০২১ সালে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের কাছ থেকেও পুরস্কার গ্রহণ করেন আলো।

এ বিষয়ে আলোর বারা রাকিবুল আলম বলেন, ‘আলো আমাদের গর্ব। সে জাতীয় পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ অন্যদের কাছে থেকে একাধিক পুরস্কার গ্রহণ করেছে। এবারও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে পুরস্কার গ্রহণ করবে আলো। আলো কুমিল্লা জেলা পর্যায়ের পাশাপাশি বিভাগীয় ও জাতীয় পর্যায়ে বারবার চ্যাম্পিয়ন হয়ে আমাদের সম্মান দেশ ও দেশের বাইরে পৌঁছে দিয়েছে।’

এ বিষয়ে আলোর মা আকলিমা আক্তার জানান, ‘আমি চাই, আমার মেয়ে দেশ-বিদেশের সেরা দাবা খেলোয়াড় হোক। দেশে দাবায় মহিলা গ্র্যান্ডমাস্টার নেই। আমি চাই, আমার মেয়ে প্রথম গ্র্যান্ডমাস্টার হয়ে দেশের আনাচে-কানাচে পড়ে থাকা সব দাবা খেলোয়াড়কে উদ্বুদ্ধ করুক।’

আলো তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘আমাকে অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে। আমি এ পর্যায়ে এসেছি আমার বাবা, মা ও অনেক সুহৃদ ব্যক্তির অনুপ্রেরণা ও সহযোগিতায়। আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। আমাদের দেশে কোনো নারী গ্র্যান্ডমাস্টার নেই। আমি দেশের প্রথম নারী গ্র্যান্ডমাস্টার হতে চাই। আশা করি, সবাই পাশে থেকে আমাকে অনুপ্রেরণা জোগাবেন।’

তিতাস (কুমিল্লা) প্রতিনিধি

spot_imgspot_img

ইতালিপ্রবাসীদের জন্য সুখবর দিল ভিএফএস

ভিএফএস গ্লোবালের অনিয়ম-দুর্নীতি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশের পর নড়েচড়ে বসেছে ভিএফএস গ্লোবাল। এবার তারা ইতালিপ্রবাসীদের জন্য সুখবর নিয়ে এসেছে। ভিএফএস তাদের নিজস্ব ফেসবুক পেজের মাধ্যমে...

জেলখানার চিঠি বিকাশ চন্দ্র বিশ্বাস  কয়েদি নং: ৯৬৮ /এ  খুলনা জেলা কারাগার  ডেথ রেফারেন্স নং: ১০০/২১ একজন ব্যক্তি যখন অথই সাগরে পড়ে যায়, কোনো কূলকিনারা পায় না, তখন যদি...

কর্মসৃজনের ৫১টি প্রকল্পে নয়ছয় মাগুরায়

মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলায় ২০২৩-২৪ অর্থবছরে অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচির (ইজিপিপি) আওতায় দ্বিতীয় পর্যায়ের ৫১টি প্রকল্পের কাজে নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। প্রকল্পে হাজিরা খাতা না...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here