Saturday, June 22, 2024

শিল্পমন্ত্রী :কালোবাজারিরা সরকারের চেয়েও পাওয়ারফুল

কর্পোরেট কোম্পানিগুলো বোয়াল মাছ ও গজার মাছের মতো সব খেয়ে ফেলতে চাচ্ছে। ছোট বড় পণ্য থেকে শুরু করে মিডিয়া, সংবাদপত্র সবই তাদের নিয়ন্ত্রণে। পাশাপাশি কালোবাজারিরা সরকারের চেয়েও পাওয়ারফুল। আমাদের আমদানি নীতিতে কিছু ভুল আছে। চোরা ব্যবসায়ীরা সেই সুযোগ নেয়। শাস্তি দিতে গেলেই তারা নানা যুক্তি তুলে ধরে বলে জানান শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন।

সোমবার বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনে ভোক্তা-অধিকার নিশ্চিতে ব্যবসায়ীদের দায়িত্বশীলতা নিয়ে এক ছায়া সংসদে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ও ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির যৌথ আয়োজনে প্রতিযোগিতাটি অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ।

‘ব্যবসায়ীদের দায়িত্বশীল আচরণই ভোক্তা-অধিকার নিশ্চিত করতে পারে’ শীর্ষক ছায়া সংসদে তেজগাঁও কলেজের বিতার্কিকদের পরাজিত করে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের বিতার্কিকরা বিজয়ী হয়। প্রতিযোগিতায় বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, অধ্যাপক আবু মুহাম্মদ রইস, সাংবাদিক মাঈনুল আলম, মোঃ তৌহিদুল ইসলাম, সায়েদুল ইসলাম, দৌলত আক্তার মালা প্রমূখ। প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ী দলকে ট্রফি ও সনদপত্র প্রদান করা হয়।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার জন্য রাজনীতিবিদদের ব্যর্থতা রয়েছে। এটা অস্বীকার করা যায় না। নির্বাচনকে সামনে রেখে সরকারকে বেকায়দায় ফেলার জন্য কেউ কেউ দ্রব্যমূল্য অনিয়ন্ত্রণে কাজ করছে। দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাজনৈতিক সদিচ্ছা থাকতে হবে। চাকরিজীবি, মধ্যবিত্ত, নিম্নবিত্তের জন্য এখন দ্রব্যমূল্য অসহনীয় হয়ে উঠছে। কিছু কিছু ব্যবসায়ী আছে তারা শুধু টাকা টাকা করে। যেখানে আমাদের রেমিট্যান্স যোদ্ধারা দেশে বৈদেশিক মুদ্রা প্রেরণ করছে, সেখানে এক শ্রেণির ব্যক্তি দেশের টাকা লুট করে আমেরিকা, কানাডায় বাড়ি-গাড়ি করছে।

আমাদের অনেক উন্নয়ন হলেও মানসিকতার পরিবর্তন হয়নি উল্লেখ করে শিল্পমন্ত্রী বলেন, দেশের প্রতি ভালোবাসা, নৈতিকতা ও মমত্ববোধ থাকতে হবে। তাহলেই দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করে আমরা জনগণের মধ্যে স্বস্তি আনতে পারব। দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে নিরলসভাবে কাজ করার জন্য ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরকে কবি, সাহিত্যিক, সাংবাদিক, চলচ্চিত্রকারদের মতো জাতীয় পুরস্কার প্রদানের উদ্যোগ নেওয়া যেতে পারে।

সভাপতির বক্তব্যে ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ বলেন, অবৈধ মজুদদারের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত। তবে জেল জরিমানা বা পুলিশ দিয়ে বাজার নিয়ন্ত্রণ করা কোন সমাধান নয়। তিনি বলেন, ডিমের কারসাজি প্রতিরোধে সরকার গত ২১ সেপ্টেম্বর ডিম আমদানির অনুমোদন দিলেও এখনো পর্যন্ত আমদানিকৃত একটি ডিমও দেশে এসে পৌঁছেনি। আশা করা হয়েছিল আমদানিকৃত ডিম ১১ টাকা করে পাওয়া যেত। দেশে ডিমের চাহিদা প্রতিদিন ৫ কোটি। সেই হিসেবে ১ টাকা বেশিতেও ডিম বিক্রি করলে, আমদানি অনুমতি দেওয়ার পরও আমদানিকৃত ডিম দেশে না আসায় এই একমাসে শুধু ডিম থেকে দেড়শত কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে ডিম কারবারীরা।

 

 
spot_imgspot_img

ইতালিপ্রবাসীদের জন্য সুখবর দিল ভিএফএস

ভিএফএস গ্লোবালের অনিয়ম-দুর্নীতি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশের পর নড়েচড়ে বসেছে ভিএফএস গ্লোবাল। এবার তারা ইতালিপ্রবাসীদের জন্য সুখবর নিয়ে এসেছে। ভিএফএস তাদের নিজস্ব ফেসবুক পেজের মাধ্যমে...

জেলখানার চিঠি বিকাশ চন্দ্র বিশ্বাস  কয়েদি নং: ৯৬৮ /এ  খুলনা জেলা কারাগার  ডেথ রেফারেন্স নং: ১০০/২১ একজন ব্যক্তি যখন অথই সাগরে পড়ে যায়, কোনো কূলকিনারা পায় না, তখন যদি...

কর্মসৃজনের ৫১টি প্রকল্পে নয়ছয় মাগুরায়

মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলায় ২০২৩-২৪ অর্থবছরে অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচির (ইজিপিপি) আওতায় দ্বিতীয় পর্যায়ের ৫১টি প্রকল্পের কাজে নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। প্রকল্পে হাজিরা খাতা না...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here